.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

রবিবার, ১১ মার্চ, ২০১৮

বিশ্বাস

।। সুপ্রদীপ দত্তরায় ।।

(C)Image:ছবি















মি কাউকে বিশ্বাস করি না 
যারা আমার পাশে আছেন
 
আমার শ্বাস যাদের শরীরে
 
প্রতি মুহূর্তে প্রতিধ্বনিত হচ্ছে
 
আমি তাদের কাউকে বিশ্বাস করি না ।
এখন আমার অবস্থান অনেকটা 
ঘোলা জলে মাছ ধরার মতো
যারা আমাকে গালি দেন
যারা ভালোবাসার কথা শুনায়
 
যারা স্বপ্ন দেখায়, সুখের ভরসা দেয়
আমি তাদের গায়ে বিষাক্ত গন্ধ পাই
 
তাদের কাউকে আমি
  বিশ্বাস করি না ।
প্রতিটি মুখের আড়ালে আমি
 
মুখোশের অন্বেষণ করি।
কোথায় যেন শুনতে পাই 
কারা যেন ভাঙছে কারো মূর্তি
 
কেউ ভাবছেন বাম, কারো দাবি রাম
আমি ভাবছি হায়, এইতো পরিণাম
 
যারা ভাঙছে, কারা তারা?
দেখছি যা সব, মুখ নাকি মুখোশ ভরা ।
কিছুই আজ আর বিশ্বাস করি না হায়।
হে সর্বশক্তিমান, আমাকে দৃষ্টি দাও
যেন সত্যদ্রষ্টা হই।
 
যতই গরল হোক সত্যের প্রতিচ্ছবি,
মুখোশের অন্তরালে যত মুখচ্ছবি
 
মুহূর্তের দৃষ্টিতে আমি যেন সব চিনতে পাই।





একটি মন্তব্য পোস্ট করুন