.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

শুক্রবার, ১৬ মার্চ, ২০১৮

আমি গিনিরুম বলছি


    ।।   রফিক উদ্দিন লস্কর   ।।

(C)Image:ছবি















মি এক কিশোরী সবে তেরো পেরিয়ে গেলাম
আমি মেয়ে হয়ে জন্মেছি তাই আমি ধর্ষিতা,
 
ঘন জঙ্গলে থাকি সাধারণের মতো নই যে আমি
প্রতিবাদ করতে পারেনি আমার পিতামাতা।
সাতসকালে ক্ষেতের কাজে ছুটে যান মা-বাবা
জুমচাষ যে সম্বল কারণ অভাবী যে সংসার।
নিত্যদিনের মতো চলে গেছে সেদিনও সকালে
একা ঘরে পেয়ে ধর্ষণ করেছে ওরা বারবার।
আমি দুর্বল বয়স তো কম বুঝতে পারিনি কিছুই
ঐ বখাটের দল খুবলে খেয়েছে সারাটি দেহ,
প্রমাণ লোপাটে ঐ নরপশুরা ছোরা চালায়
অসহ্য শত যন্ত্রণা, কতো কেঁদেছি শুনেনি কেহ।
আমার চিৎকার শুনেছে ঐ আকাশ বাতাস
সাক্ষী রয়েছে কুঁড়েঘর আর আমার লহু,
কি করেছি এমন আমি? কিবা আমার দোষ?
 
ভাবলোনা পাষণ্ডরা একবার করলোনা উহু!
আমার সম্ভ্রম কেড়ে নিলো ওরা সাথে করে প্রাণ
আমি বলছি, আমার আত্মার শান্তি নাই,
এমন যেন কেউ কোনদিন না হয় আমার মতো
আমি ধর্ষকের সাথে দর্শকের ও শাস্তি চাই।
১৬/০৩/২০১৮ ইং
নিতাইনগর,হাইলাকান্দি (আসাম-ভারত)






একটি মন্তব্য পোস্ট করুন