.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

রবিবার, ২৫ মার্চ, ২০১৮

বোবার হরতাল

           ।।          রফিক উদ্দিন লস্কর          ।।
বসে পান্থপাদপের ছায়ে একাকিত্বের সুবাদে
খোলা হাওয়ায় জিরিয়ে নেয় দুপুরের রোদে।
অতীতস্মৃতি ঢেউ খেলে তীব্র থেকে তীব্রতর
মাঝে মাঝে উঁকি দেয় মেঘে ঢাকা তারার ঘর।
মুহূর্তেই হারিয়ে যায় উড়ো বাতাসের মতো
সজীব দেহে রাঙা বেশে স্বপ্ন ছিলো কতো।
প্রতিবাদকারী মুখের মাঝে কুলুপ এঁটে রাখে
অলিতেগলিতে বোবার হরতাল এগিয়ে ডাকে।
মাঝে মাঝে বাজি পটকা আকাশদেশে ছুটে
রক্ত হোলির পিচকারিতে কাদায় পড়ে লুটে।
কারও বক্ষে চাবুক হানে কারও চোখে পানি
পাষাণমূর্তি দাঁড়িয়ে যেথায় করে টানাটানি।
এগিয়ে আসে ক্লান্তদিনে দুচোখ ভরে ঘুম
দুপুরবেলায় চাঁদমামায় কপালে দেয় চুম।
রাতের জোনাক একলা হাসে সঙ্গীসাথি হারা
অবাধ মনে এগিয়ে এলে কাটতে হবে কারা।

২৫/০৩/২০১৮ইং
নিতাইনগর,হাইলাকান্দি (আসাম-ভারত)




একটি মন্তব্য পোস্ট করুন