.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

শনিবার, ৩ মার্চ, ২০১৮

নিজেকে আঁকো


মূল অসমিয়া:  রোশনরা বেগম 
অনুবাদ:পার্থ সারথি দত্ত      
(C)Image:ছবি









নিজেকে আঁকো,তুলিকায় রং বোলাও
কখনও জলরঙে,কখনোবা তেলরঙে
ক্যানভাসে বন্দী করো সময়
জীবন বড় ছোট
নিজের সঙ্গে কথা বলার সময় বড্ড কম৷
পথ বহুদূর, হাতে কী নিয়ে যাবে?
তোমার কাছে তুমি,আমার কাছে আমি৷
আঁকো, আঁকতে থাকো
কখনও চোখ,কখনোবা ঠোঁট,
কখনোবা পায়ের পাতা৷
কে জানে কোথায় বয়ে যায় কার গতি
একবার সময় পেরিয়ে গেলে
ফিরেও পাবে না চিনে
অমৃত বলে বলতে গিয়ে বিষ হয়ে না যায় যেন
তোমার হাতের মদিরার পেয়ালাটি  
~~~~০০০~~~
  






একটি মন্তব্য পোস্ট করুন