.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

শুক্রবার, ২ মার্চ, ২০১৮

চন্দ্রপ্রসাদ


মূল অসমিয়া :ইসমাইল হোসেইন, 
অনুবাদ:পার্থ সারথি দত্ত 










দিনগুলো পুরনো হলে মানুষেরা পুরনো হয়
তোমাকে তো পুরনো হওয়া দেখিনি চন্দ্রপ্রসাদ
চন্দ্র তোমার নাম বলেই নাকি একটি শুভ্র পতাকার
মতো শুভ্র তোমার হৃদয়;শুভ্র তোমার চলা, শুভ্র
তোমার দৃষ্টি অরণ্য-মন্থন বাসনা সাগর৷

আমি মাঝে মাঝে তোমার মাঝে প্রবেশ করি আর
ভাবি: শুভ্র মানুষগুলো কখনও হলুদ হয় কেন?
আবার হলুদেরাই শুভ্র মানুষের সারিতে দাঁড়িয়ে
কেন -'আমি শুভ্র;আমি শুভ্র' বলে!
 তাই চন্দ্রপ্রসাদ, তোমাকে জানার পর আমি
চিনতে পারি শুভ্র আর হলুদের পার্থক্য ।                                                              তুমি চন্দ্র,তাই জন্ডিস হলেও যেন তুমি হলুদ হওনা,
হলুদ হয়না পুরনো হওয়া নতুন মানব ৷

~~~০০০~~~




একটি মন্তব্য পোস্ট করুন