.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

বুধবার, ২৯ নভেম্বর, ২০১৭

লুংথুং

।। অভীক কুমার দে।।
(C)Image:ছবি














.
দিকে নদীপাড় থেকে ধুলোপথের আঁচল
ধানিজমির বুক ছুঁয়ে পাড়ায় পাড়ায়,
এদিকে উচাইদের টং ঘর এড়িয়ে পাহাড় বেয়ে ওঠা,
মুহুরির হাঁটুজলের বালুবাঁক লুংথুং খোঁজে
 
.
নতুন ইস্কুল হয়েছে তখন
ষোলোআনা যুবক বয়সে ক্লাস ওয়ানের ছাত্র ছবি উচাই
কাটাধুতির সাথেই রপ্ত হয়েছে হাটের দোষ
সপ্তাহের সব ব্যথা নিয়ে হাট সেজে উঠলেই
দাগ পড়া চায়ের গেলাসে ভারি নিঃশ্বাস জমা হতো।
.
সময় পেরিয়ে হাঁটুজলের মুহুরি এখন অনেক গভীর
উল্টো স্রোতে ভেসে উঠেছিল যে রিফিউজি ঢল
সে ঢল হাটবারের একচালা ভাসিয়ে উদোম বাজার,
নদীচর জানে কতটা আঘাতে মৃত লুংথুং
জরিপের মুহুরিপুর।
..........................





একটি মন্তব্য পোস্ট করুন