.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

মঙ্গলবার, ২ মে, ২০১৭

উত্তরপূর্বের বিশিষ্ট প্রকাশন সংস্থা ‘স্রোত’ আয়োজিত উত্তরপূর্ব কথাসাহিত্য উৎসব – ২০১৭, আগরতলা


।। অশোকানন্দ রায়বর্ধন।।
সংবাদ:২৮:০৪:২০১৭:প্রথম বারের মতো স্রোত আয়োজিত উত্তর পূর্ব কথা সাহিত্যউৎসব:২০১৭ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে রবীন্দ্র শতবার্ষিকী ভবন আগরতলায় আগামী ১১জুন ২০১৭।তথ্য সংস্কৃতি দপ্তর,ত্রিপুরা সরকার , পূর্বোত্তর ভারতের লেখকদের আন্তর্জাল গোষ্ঠী ‘ঈশানের পুঞ্জমেঘ’, বাংলাদেশের চট্টগ্রামের অভ্যুদয় সংগীত অঙ্গন এবং বাচিক শিল্পী প্রবীর পালের  সহযোগিতায় এই আয়োজনে বাংলাদেশের কথা সাহিত্যিক ড.সেলিনা হোসেন,মেঘালয়ের কথা সাহিত্যিক স্ট্রীমলেট ডখার,ফাল্গুনী চক্রবর্তী,আসামের দেবীপ্রসাদ সিংহ,তপন কুমার মোহন্ত , সুশান্ত কর, কান্তারভূষণ নন্দী, মেঘমালা দে এবং বাংলাদেশের  আনোয়ারা সৈয়দ হক, জাহাঙ্গীর আলম,কবি আসলাম সানী,জয়দুল হোসেন,মনিরুল মনির সহ প্রায় ৪০জন কবি সাহিত্যিক সাংস্কৃতিক গুণীজন অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন বলে কথা দিয়েছেন।ত্রিপুরার কবি রামেশ্বর ভট্টাচার্য, প্রাবন্ধিক অশোকানন্দ রায়বর্ধন, কবি আকবর আহমেদ,কবি অপাংশু দেবনাথসহ কবি সাহিত্যিক ও সাংস্কৃতিক গুণীজনদের সহযোগিতায় এই আয়োজনে ইতিমধ্যেই আগরতলায় বিপুল সাড়া পরিলক্ষিত হচ্ছে।প্রায় তিরিশজনের প্রস্তুতি কমিটি সহ আলোচনা ক্রমে আগামী ১১জুন ২০১৭ রবীন্দ্র শতবার্ষিকী ভবনে বিকেল ৩টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত কথাসাহিত্য উৎসব উদযাপিত হবে বলে প্রাথমিক আলোচনায় তারিখ স্থির হয়।সমগ্র অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করবেন বাচিক শিল্পী শাঁওলী রায়,সিদ্ধার্থ হালদার, সুমিতা ধর বসু ঠাকুর এবং অধ্যাপিকা মৌসুমি বাসফোরআয়োজক স্রোতের পক্ষে কবি গোবিন্দ ধর একথা জানিয়ে সকলের সহযোগিতা কামনা করেছেন।
   পুরো অনুষ্ঠান সূচী এখানে রইলঃ

সম্ভাব্য অনুষ্ঠান সূচী

তারিখ:১১:০৬:২০১৭
সময়:বিকেল:৩টা-রাত:৯টা
প্রথম পর্ব:৩টা-৪:৩০মি।
গৌরবোজ্জ্বল উপস্থিতি
ভানুলাল সাহা,তথ্য সংস্কৃতি মন্ত্রী,ত্রিপুরা।
ড.প্রফুল্লজিৎ সিনহা,পুরপিতা,আগরতলা পুর নিগম।
শুভাশিস তলাপাত্র,মাননীয় বিচারপতি,ত্রিপুরা হাইকোর্ট।
ড.সেলিনা হোসেন,কথাসাহিত্যিক, ঢাকা,বাংলাদেশ।
তপোধীর ভট্টাচার্য, সাহিত্যিক,আসাম।
স্ট্রীমলেট ডখার,কবি ও কথাসাহিত্যিক, মেঘালয়।
আনোয়ারা সৈয়দ হক,কথাসাহিত্যিক, ঢাকা,বাংলাদেশ।
নুরুদ্দীন জাহাঙ্গীর,কথাসাহিত্যিক, ঢাকা,বাংলাদেশ।
কল্যানব্রত চক্রবর্তী,বিশিষ্ট প্রাবন্ধিক ও কবি,ত্রিপুরা।
দেবীপ্রসাদ সিংহ,কথাসাহিত্যিক, গৌহাটি,আসাম।
সুশান্ত কর,সাহিত্যিক, তিনসুকিয়া,আসাম।
জ্যোতির্ময় সেনগুপ্ত,সাহিত্যিক, গৌহাটি,আসাম।
এল.বীরমঙ্গল সিনহা,কথাসাহিত্যিক, ত্রিপুরা।
আকবর আহমেদ,কবি,ত্রিপুরা।
ফাল্গুনী চক্রবর্তী,কবি মেঘালয়।
স্বাগত বক্তব্য:গোবিন্দ ধর
ইংরেজী ভাষান্তর:পদ্মশ্রী মজুমদার।
শুভেচ্ছা বক্তব্য :অশোকানন্দ রায়বর্ধন,বিশিষ্ট প্রাবন্ধিক,ত্রিপুরা।
উদ্বোধনী সঙ্গীত
পিয়ালী চৌধুরী,শিল্পী,আওয়াজ,ত্রিপুরা।
সঞ্চালক:শাঁওলী রায়,বাচিক শিল্পী,ত্রিপুরা।
মৌসুমী বাসফোর,অধ্যাপিকা,ত্রিপুরা।
দ্বিতীয় পর্ব:বিকেল ৪:৩০মি-সন্ধ্যা ৬টা।
ত্রিপুরার দুজন গল্পকারের গল্পে প্রতিবাদ ও প্রতিরোধের উচ্চারণ
পদ্মশ্রী মজুমদারেরর গল্প নিয়ে বলবেন:মঞ্জু দাস
বিল্লাল হোসেনের গল্প নিয়ে বলবেন:সুতপা দাস।
প্রতিবাদের কবিতা আবৃত্তি
নির্বাচিত বাচিকশিল্পী পরিবেশিত নির্বাচিত কবিদের কবিতা আবৃত্তি
গৌরবোজ্জ্বল উপস্থিতি
শংকর বসু, কবি,ত্রিপুরা।
রামেশ্বর ভট্টাচার্য, কবি,ত্রিপুরা।
দিলীপ দাস,কবি,ত্রিপুরা।
চন্দ্রকান্ত মুড়া সিং, কবি, ত্রিপুরা।
জয়দুল হোসেন,কবি,ব্রাহ্মণবাড়িয়া,বাংলাদেশ।
শরাফত হোসেন,কবি,বাংলাদেশ।
হানিফ খান,কবি,বাংলাদেশ।
মনিরুল মনির,চট্টগ্রাম, বাংলাদেশ।
আসলাম সানি,কবি,বাংলাদেশ।
তপন কুমার মোহন্ত,কবি ও কথাসাহিত্যিক, আসাম।
যোগমায়া চাকমা,কবি,ত্রিপুরা।
বিশ্বজিৎ দেব,কবি,ত্রিপুরা।
নির্বাচিত কবি নির্বাচিত বাচিকশিল্পী
সঞ্জীব দে:সংগীতা সিনহা
অভীক কুমার দে:স্মিতা ভট্টাচার্য
দীপান্বিতা সেনগুপ্ত:শাঁওলী রায়
সুমন পাটারী:অপাংশু দেবনাথ
চিত্তরঞ্জন দেবনাথ:মণীষা পুরকায়স্থ
রাহুল সিনহা:সুমিতা ধর বসু ঠাকুর
চিরশ্রী দেবনাথ:বিধাতৃ দাম
হারাধন বৈরাগী:পদ্মশ্রী মজুমদার
মৃণাল কান্তি দেবনাথ:পিনাক পাণি দেব
বিপুল কান্তি চক্রবর্তী :সিদ্ধার্থ হালদার
রতন আচার্য:ফাল্গুনী চক্রবর্তী
সন্ধ্যা ভৌমিক:শুচীশ্মিতা মহাপাত্র
অমলকান্তি চন্দ:নীলাঞ্জসা রায়বর্মন
তৃতীয় পর্ব:সন্ধ্যা ৬টা - রাত ৮টা
উত্তরপূর্বের বাংলা ছোটগল্পে প্রতিবাদ ও প্রতিরোধের উচ্চারণ
নির্বাচিত গল্পকারদের অনুগল্পপাঠ
গৌরবোজ্জ্বল উপস্থিতি
ড.সেলিনা হোসেন(বাংলা),বাংলাদেশ
আনোয়ারা সৈয়দ হক(বাংলা),বাংলাদেশ
নূরদ্দীন জাহাঙ্গীর (বাংলা),বাংলাদেশ
তপোধীর ভট্টাচার্য, কথাসাহিত্যিক, আসাম।
দেবীপ্রসাদ সিনহা,কথাসাহিত্যিক, আসাম।
স্ট্রীমলেট ডখার(খাসি),মেঘালয়
ফাল্গুনী চক্রবর্তী (বাংলা),মেঘালয়
তপন মোহন্ত(অসম),আসাম।
স্নেহময় রায়চৌধুরী(ককবরক),ত্রিপুরা
অনুকুল সিনহা(মনিপুরী),ত্রিপুরা
শ্যামল বৈদ্য(বাংলা),ত্রিপুরা
বিল্লাল হোসেন(বাংলা),ত্রিপুরা
পুলকেন্দু চক্রবর্তী,(বাংলা),ত্রিপুরা
কান্তারভূষণ নন্দী,গৌহাটি,আসাম।
সত্যজিৎ দত্ত(বাংলা),ত্রিপুরা
পদ্মশ্রী মজুমদার,(বাংলা)ত্রিপুরা
শ্যামাপদ চক্রবর্তী,(বাংলা),ত্রিপুরা
মেঘমালা দে,শিলচর,আসাম।
দীপঙ্কর গুপ্ত,(বাংলা),ত্রিপুরা
নির্মল দত্ত,(বাংলা),ত্রিপুরা
পৃথ্বীশ দত্ত,(বাংলা),ত্রিপুরা
সঞ্জয় পুরকায়স্থ,(বাংলা),ত্রিপুরা
সভাপতি
ড.দেবব্রত দেবরায়,প্রাবন্ধিক,ত্রিপুরা।
চতুর্থ পর্ব:রাত ৮টা- রাত ৯টা
বাংলাদেশের অভ্যূদয় সঙ্গূত অঙ্গনের আমন্ত্রিত শিল্পীদের পরিবেশিত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান
প্রদ্যোৎ কুমার মজুমদার
শ্রেয়সী রায়
প্রবীর পাল
পৃথ্বী নন্দিনী
শ্রীপর্ণা মজুমদার
পূর্ণিমা পাল
সেঁজুতি দে
শৈবাল বড়ুয়া
কামনাশীষ সেনগুপ্ত
সুমন বসাক
রিপা পালিত
বর্ণিল বসাক
প্রিয়ম বিশ্বাস
শ্রীয়া চৌধুরী
যীশু কুমার নাথ
রিকি বসাক
সানি দে
চন্দ্রিমা ভৌমিক
শ্রাবনী চৌধুরী
নিখিলেশ বড়ুয়া
বনানী দত্ত
শিল্পী রায়
এ্যালড্রিন ভিনসেন্ট ক্রাউলি
অনির্বাণ ভট্টাচার্য
শেষের কবিতা আবৃত্তি
ফাল্গুনী চক্রবর্তী, কবি ও বাচিকশিল্পী,মেঘালয়।
সঞ্চালক:
সিদ্ধার্থ হালদার,বাচিক শিল্পী,ত্রিপুরা।
শাঁওলী রায়,বাচিক শিল্পী,ত্রিপুরা।
মৌসুমী বাসফোর,অধ্যাপক,ত্রিপুরা।








একটি মন্তব্য পোস্ট করুন