.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

মঙ্গলবার, ২ মে, ২০১৭

কেনো খুঁজো?

             
               ।।রফিক উদ্দিন লস্কর।।
(C)Image:ছবি
















তুই তো সবসময়  তোর দরজা খুলে থাকিস,
কেন তুই অবাধ আসা যাওয়ার হিসেব রাখিস ?
আলাদিন! সাক্ষাতে তোর প্রদীপ ভরা জিনে,
আমায় খুঁজতে যাও কেনো রঙিন ম্যাগাজিনে ?
তোর ভেজা চক্রযান কখনো হরিৎ ছুঁয়ে ফেলে,
আমার সমস্ত পথটা চলে ভীষণ খামখেয়ালে।
তারপর বেরোয় মেঘ আর তারায় ভরা স্টেশন ,
দেখে থামতে চায় নাগরের একটু ইন্সপিরেশন।
তোর এ সকালের ভাত ঘুম ভেঙ্গে দিতে পারি,
ছিঁড়ে দেবো তোর বিকেলের উড়ন্ত রঙিন ঘুড়ি।
বেঁধে দিতে পারি তোকে ঐ আলোর আলপিনে,
নিয়ে যেতে পারি হয়তো তোকে বসন্তের দিনে।
ভেঙে ফেল তোর কথাবলা টেবিলের সেই ঘড়ি,
আমি জানি, সব কিছুই তোর মিথ্যে আহামরি!
আমি শুনতে চাই তোর পাঁজর ভাঙ্গা চিৎকার,
যাতে করে মিটে যায় তোর জীবনের অহংকার।


০২/০৫/২০১৭ইং
গণেশগুড়ি,গুয়াহাটি (আসাম)



একটি মন্তব্য পোস্ট করুন