.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

সোমবার, ১ মে, ২০১৭

হে গুয়াহাটি!

              
        ।।রফিক উদ্দিন লস্কর।।

















তোমার কোলে আসিবার এতোই সাধ
পূর্ণ করেছো হে গুয়াহাটি,
তুমি ধারণ করে আছো সবুজ বনানী
মহাবাহু আর পাথুরে মাটি।
হে গুয়াহাটি! কল্পনার জগতে থাকতে
শুধুই তুমি আমার দিনরাত,
বাস্তবে দেখিতে তোমায়, আমার যে হয়
অনিদ্রায় রাতের পরে প্রভাত।
কতো হেরিলাম, কতো ঘুরিলাম তোমাতে
তবুও আমার ভরে নাহি প্রাণ,
ছোট বড়ো পাহাড় নন্দিত রূপ রয়েছে তব
কতো অচেনা বৃক্ষ,পাখির গান।
মনের টানে কাজের টানে আসি বারবার
আমি আমার সাতবোনের দেশে,
কষ্ট হলেও আমার মনে মন্দ লাগেনি কভু,
অনিন্দ্য রূপস্রোতে যাই যে ভেসে।
যা দেখে আমার আঁখি সাধ্য নেই বর্ণনার
মিশেছে আকাশে সে দৃশ্য অপরূপ!
চায় মন ধরে রাখে আঁখি আহা!কি বাহার!
নীরবে কথা কয়,মন থাকে নিশ্চুপ।
তুমি সুন্দর, তোমার আছে অপরূপ সৌন্দর্য
বারে বারে ডাকিবে আমায়,
আমি পৃথিবীর যে প্রান্তে থাকিনা কেনো
ভুলিতে পারিবনা তোমায় ।
০২/০৫/২০১৭ইং
যাত্রাকালে ট্রেনে,( লামডিং,আসাম)

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন