.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

বুধবার, ৩ মে, ২০১৭

অবসন্নতা

।। সুরজিৎ মণ্ডল।।

 
(C)image:ছবি













মাকে কেন জড়িয়ে রেখেছে,
কিছু অলস ভাব?
কোনো কাজেই মন লাগেনা,
দৃঢ়তার অভাব।
সারা দিন শুধু ভেবেই মরি,
কী করা যায় আজ,
দিন শেষ হয়ে রাত এসে পরে, ,
পাই নিজেই লাজ।
করবো করবো ভাবতে ভাবতে,
পার হয়ে যায় দিন,
প্রতিনিয়ত আমার কাটছে,
এভাবে কর্মহীন।
অবসন্নতা কেনবা আসলো,
এমন ঝিম ঝিম?
জীবন তো সবে শুরু হলো,
এখনি টিম টিম।
নিজের হাতে করছি নষ্ট,
নিজের ভবিষ্যৎ,
অলস ভাব কীভাবে যায়,
কেউ কিছু দাও মত?
আমাকে আমি শেষ করছি,
অবসন্নতা এনে,
দয়া করে কেউ এনো না,
অলস ভাব টেনে।
অলসতা ধ্বংস করে,
দামী জীবনটা,
কেউ হয়তো বলতে পারে,
আলস্য কোনটা?
এই যে, করবো করবো,
ভাব রেখোনা,
না না দিন, ক্ষণ, বার
চেয়ে থেকোনা।
যখন যা হয় করণী,
সময় মতো করো,
না হয় আবার অলস হয়ে,
আমার মতোই মর।
                            




একটি মন্তব্য পোস্ট করুন