“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো ,স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ...তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!—সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!” ০কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ০

মঙ্গলবার, ৬ নভেম্বর, ২০১৮

তুমি চাইলেই

তুমি চাইলেই হাত বাড়িয়ে  আকাশ ছুঁতে পারি 

তুমি চাইলেই সাগর নিঙরে মুক্তো আনতে পারি

শুধু তুমি চাইলেই ।

তুমি চাইলেই চাকরি ছেড়ে সন্ন্যাস নিতেই পারি 

ভর দুপুরে চাঁদকে ডেকে  বন্ধু মানাতে পারি।

ধোঁয়ায় ধোঁয়ায় নিকটিন আর দুঃখ বিরহ জ্বালা 

ঘর ছেড়ে আজ পথে নেমেছি সঙ্গে রিক্সাওয়ালা

তুমি চাইলেই যেতে পারি আমি ময়দান কিংবা মলে

তোমার আশায় বসে বসে আজ, ভদকায় পা টলে

তুমি চাইলেই শুন্য পাত্র ভরে উঠে মদিরায় 

শুধু তুমি চাইলেই ।

তুমি চাইছো তাই কালীপূজা আজ রঙিন পিচকারী 

আলোয় আলোয় আলোকময় ,আলয় সাজতে পারি 

তারাবাতি আর আতসবাজিতে পথ ঘাট একাকার 

তুমি নেই তাই নিষ্প্রদীপ আজ , শুন্য অন্ধকার 

তুমি চাইলেই পাট্টা ছেড়ে সাট্টা খেলবো রাতে 

তুমি চাইলেই সাট্টা ছেড়ে ধরবো তোমার হাতে

তুমি চাইলেই হারানো সুখ আবারও খুঁজতে পারি

ভালবেসে যদি হাতটি বাড়াও আবারো বাঁচাতে পারি 

শুধু তুমি চাইলেই ।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন