.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

বৃহস্পতিবার, ১৯ এপ্রিল, ২০১৮

জয়শ্রী

।। সুপ্রদীপ দত্তরায় ।।











ত্যি জয়শ্রী, তুই পারিস বটে
মোবাইলটি হাতে নিয়ে যা এলো মনে
টপাটপ টাইপ করে তাই দিলি ঠুকে
 
এই যে লিখছিস , নিজেইতো দেখছিস
 
সব কেমন নির্বিকার, চেত চৈতন্য হীন।
তবুও তুই ভাবছিস , ক্রমাগত লিখছিস
 
সত্যি তুই পারিস বটে।
আচ্ছা জয়শ্রী , তুই কেমন তরো মেয়ে গো
শহর জুড়ে চৈত্র মাসের রমরমা বাজার
 
দোকানেতে পসরা দেখো রকম হাজার হাজার ।
ছাতা জুতো লাঠি থেকে মগ ফিল্টার বাটি
কি নেই এই বাজারেতে, সবাই বলছে খাঁটি।
কেউ কিনছে কাপড়, তো কেউ বেডকভার
 
এই গরমেই কেউ কিনছে সস্তায় পুলওভার ।
কারো চাই ফিল্টার , কারো গ্যাস স্টোভ
 
কেউ কিনছে সস্তায় কেউ দরদামে খুব ।
দোকানেগুলোয় মা মাসীদের নাজেহাল দশা
তুই
  কোথায় এসব ছেড়ে মোবাইল নিয়ে বসা 
সত্যি, তুই পারিস বটে ।
তুই কি জানিস জয়শ্রী, চৈত্র সেলের খবর
এবার নাকি আনন্দময়ীতে, বালুচরির বহর
বেনারসি, কাঁথা সিল্ক, বোমকাই মেখলা
 
সতুপিসি যে কি খুশি দাঁত দুটো ফোকলা
বললে , নাহাটাতে গিয়েছিলাম কি গরম কি গরম
তারপরও কিনেছি, দুটো শাল কি নরম।
বললে লিপস্টিক কিনেছি রে, পন্ডসের পাউডার
  
তারিখটা দেখে নিস, এক্সপেয়ারী কি কভার ।
আহারে সতুপিসি, লুনাদিদি সবাই আজ বাজারে
 
তুই শুধু বসে আছিস
  মোবাইলের মাঝারে ।
সত্যি তুই পারিস বটে ।
জয়শ্রী, তুই কি চাস বলতো? 
ধর্মেতে সম্প্রীতি ? জাত পাত বন্ধ ?
 
বিটকেল ভাবনা সব শুটকির গন্ধ --
নারীদের মুক্তি!
  সমাজে সুরক্ষা ! 
প্রতিটি শিশুর জন্য স্বাস্থ্য সুশিক্ষা? -- সম্ভব নয়।
স্বপ্নের দেশে থেকে অদ্ভুত জাল বোনা , বাস্তব নয়।
ধর্মের বাহানায় সরকার যদি গড়া
  
জাত পাত ভাবনাতে প্রশাসন হয় ভরা
তারপরও দেশ জুড়ে ভালো থাকা সম্ভব ?
সত্যি জয়শ্রী, তোকে নিয়ে অসম্ভব ।





একটি মন্তব্য পোস্ট করুন