.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

মঙ্গলবার, ১৭ এপ্রিল, ২০১৮

উধাও

।।     রফিক উদ্দিন লস্কর   ।। 

(C)Image:ছবি











তীব্র দুপুরেরও মাঝে মধ্যে কী যেন হয়...
প্রখর রোদ হঠাৎ অভিমানে হয় নীরব কুসুম।
কার ওপরে রাগ করে সে?
ধাও হয়ে গেলো কাঠফাটা রোদ্দুর।
নতুন বউয়ের মতো চোখফোলা অভিমান
ক্ষণে ক্ষণে ডানা মেলছে আর বন্ধ করছে।
 
সেই কখন থেকে অভিমানী রোদকে
জড়িয়ে আছে ঘন কালো মেঘ।
 
মেঘ আর বৃষ্টি, এরা কার,
কী হয় কী জানি! 
একজন মন ভারী করলেই আরেকজনের কান্না।
স্যাঁতসেঁতে মাটির হালকা ঘ্রাণ
বৈশাখী একদুপুরে সবুজ আম কুড়োয়,
আকাশে বিরাট গর্জন তবুও সাহস করে।
মেঘ বালিকা! নতুন সাজে নৃত্যে বিভোর,
 
দেহ থেকে খসে পড়ে রূপের জোয়ার
হেলে দুলে ভেসে যায় দূর অজানায়।
১৭/০৪/২০১৮ইং
নেনারবন্দ,হাইলাকান্দি (আসাম)





একটি মন্তব্য পোস্ট করুন