.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

বুধবার, ১৮ এপ্রিল, ২০১৮

কুয়াশায় ঢেকে ডাকে

।। অভীক কুমার দে ।।



(C)Image:ছবি











দূরে, যেখানে নক্ষত্রের দলাদলি 
কুয়াশায় ঢেকে ডাকে গ্যাসীয় সব,
বলে দেয় কত কথা...
এসবই কথকতা জেনে ডুবে যাই আকাশের নিচে
যতই কাছে যাই সরে সরে দূরে যায়
অজানার মহিমায় নীল !
অনেক শুনেছি নীল নামের বিষাদচাষ।
অনেক দেখেছি বন্ধুতার নীল।
বলেছিল কেউ, দুচোখের পদ্ম কালো,
 
আমি বলি--
 
না,
তোমার বুকের নীল দেখেছি চোখে।
যদি একনদী শুকায় চোখ
চোখের সিঁড়িতে দাঁড়ালেই আকাশ দেখি।
দেখি, সে আকাশ কেমন রঙ মাখে গালে,
কেমন চালে ডাল থেকে ডালে পাখি
লেপন দিচ্ছে রাগে...
জলকুণ্ডলি ছুঁয়ে রোদ পাতে নেমে আসে,
এখানে তপ্ত দিনের ধারাপাত, মদোবাতাস আর
শীত শীত রাতপ্রেমে আমার উঠোন,
কুয়াশায় ঢেকে ডাকে আরও গাঢ়নীল।





একটি মন্তব্য পোস্ট করুন