.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

শুক্রবার, ২০ এপ্রিল, ২০১৮

অনুগমন

।। অভীক কুমার দে ।।

(C)Image:ছবি












রল সমুদ্র আর সরল আকাশ
পরম্পরায় প্রতিচ্ছবি অথবা প্রচ্ছায়া।
পর্দার এপার ওপারে সব আমিগুলো
 
বিভাজিত হয় অনুগমনের শেষে...
আকাশের ভেতর দ্রবীভূত সমুদ্র, 
সমুদ্রের ভেতর ঘনীভূত আকাশ।
সুখের মেকআপ। অযথা নীল।
ভেতর ভেতর সমান আর্তনাদ।
বুক থেকে বুকে, সুখে অসুখে--
পরিক্রমায় ফোঁটা- জল বিনিময়।
ফোঁটা- জলের গভীর গ্যাসীয়পথ পেরিয়ে
ঘুমঠিকানার কালো চোখ।
সমুদ্রাকাশের মুক্ত মেলামেশায়
আমিগুলো কোনো অনুগমনের দেশে...





একটি মন্তব্য পোস্ট করুন