“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো ,স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ...তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!—সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!” ০কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ০

বৃহস্পতিবার, ১৯ এপ্রিল, ২০১৮

দ-পথ

।। অভীক কুমার দে ।।
(C)Image:ছবি












সের কথায় রসিক বলে
আমার গায়ে দেয়াল,
দ- এর মতোই পথের সিঁড়ি
হাঁটতে রেখো খেয়াল।
এক দিকে ফলের ফসল 
অন্যদিকে কী ?
 
পারদ যেমন ঐক্য জানে,
 
দুধের যেমন ঘি।
ভাবতে পারো অচল ঘোড়া
তেপান্তরের পাড়ি,
যাদুর লাঠি হোক না ছোট
আঘাত বড়ো ভারি।
ঘরে বসে সংখ্যা বৃহৎ
বিভাজিত হয়
অঙ্কে থেকেই অঙ্ক কষে
পৃথক অঙ্গ ক্ষয়।
ভাগের ফসল ভাগাভাগি 
অন্ধরাজার দেশ,
ঘরের ভেতর ঘর ভালো নেই
ক্লান্ত ভাগশেষ।


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন