.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

শুক্রবার, ২০ এপ্রিল, ২০১৮

অনুসরণ


।।শৈলেন দাস।।

(C)Image:ছবি










খনো অনেক স্বপ্ন কুড়ানো বাকি -
শঙ্খ চিল শালিকের বেশে
পূর্বজ কবি ফিরে আসার কথা বলে গেছেন
তাদের ভিড়ে কাটাবো কিছুক্ষণ
আম জাম কাঁঠাল হিজলের বন ভালবেসে।
ধীরপায়ে হেঁটে বেড়াব সবুজ মাঠ, ধানক্ষেত
 
শিশিরে ভেজা দূর্বা ঘাসে খুঁজে বেড়াব
কোন রূপসীর খালি পায়ের ছাপ।
তারপর প্রাণভরে কথা কইব তাদের সাথে
বরাকের বিস্তৃত হাওরগুলিতে যারা
বর্ষায় বৃষ্টিতে ভিজে জাল টানে, ডুরি পাতে
শীতে শক্ত হাতে ধরে লাঙল জোয়াল
খালি গায়ে উষ্ণতা ছড়ায় বাতাসে।
তারপর দিগন্তে সূর্য ডুবে গেলে
টিলাবাড়ি থেকে ভেসে আসবে জোকারের সুর
তখন জীবিকার টানে জীবনের নিয়ম মেনে
ক্লান্ত পায়ে রওয়ানা দেব ভিড়ের শহরের দিকে
যেখানে নিয়নবাতির কৃত্রিম জাঁকজমকে
 
জ্যোৎস্না রাতেও চাঁদের আলো ম্লান।




একটি মন্তব্য পোস্ট করুন