.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

সোমবার, ২ এপ্রিল, ২০১৮

আমার অবশেষ আমি

।। অভীক কুমার দে ।।



(C)Image:ছবি









নিজেকে বহুবার ভেঙে দেখি
বারবার আমার অবশেষে আমি কেবল রূপান্তর।
এক নদী বয়ে বয়ে সরে যায় 
পূর্ণ গাঁ শূন্য হয়
ধুয়ে যায় কোমল মাটি
ঝরে পড়ে ঘর।
 
বুকের ঝর্ণায় জলজিজ্ঞাসা।
মিশে যাবার গান শোনে গোপন ঘাঁটি।
এক নদী বয়ে বয়ে সরে যায় শাখায় প্রশাখায়
আমাকে ভাঙে
বারবার ভাঙে
ফলাফল অবশেষ
দূর থেকে দেখি-- আমারই ভাঙা চলন
বারবার খোঁজে আমাকেই !
তখনও আমি ঘুড়ি উড়াই গোপন ঘাঁটি খুঁজে,
জলবৃত্তে ছাই ধুই নিজের নিজে।





একটি মন্তব্য পোস্ট করুন