.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

রবিবার, ৪ জুন, ২০১৭

ট্র্যাপিজের মেয়ে

চিরশ্রী দেবনাথ
**************

(C)Image:ছবি














ট্র্যাপিজের খেলায়
মেয়েটি ঠিক যে মুহূর্তে শূন্যে ভাসছিল
নীচে তখন অগুনতি নক্ষত্র, বৃষ্টি ও মেঘ।
বেঁচে থাকার যাবতীয় হাততালি জড়ো করে,
একটি নির্লিপ্ত হাসি
দুহাত বাড়িয়ে দেয় সঙ্গী যুবক
দড়ির ওঠানামায় গাঢ়তম জীবন
মধু, মাংস আর ভাতের চকিত বিস্ময়
কোনদিন হাত ছেড়ে দিও বন্ধু
নীচের অবারিত জীবনে  পিচ্ছিল হয়ে উড়বো আমি
নেশার মতো হাসি ঢাকতে থাকে মেয়েটিকে
গুঁড়ো গুঁড়ো হয়ে ছড়িয়ে পড়ে সাহসী স্বেদ
...সবুজ আলো আর হাততালিতে
শীতের সকালে  কুয়াশার  দড়ি বেয়ে এভাবেই
হেঁটে যায় পৃথিবীর শুদ্ধতম তরুণীরা।



একটি মন্তব্য পোস্ট করুন