.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

বুধবার, ২১ জুন, ২০১৭

দ্বৈতসত্ত্বা



















।। অর্পিতা আচার্য ।। 

রণ আর জীবন এষনার মাঝখানে
একটা দড়িতে ঝুলতে থাকে
বেঁচে থাকা দিনরাত্রি যত -
ঘৃণার ওপিঠে লেপ্টে শুয়ে থাকে
লোভী ভালবাসা l  কামেচ্ছার পাশপাশি
গূঢ় এক হত্যা অভিসন্ধি, অহরহ
তাড়া করে ফেরে l দুহাতের তালু ভরে
ফুল দিতে গেলে, অদম্য ইচ্ছার মত
কাঁটার দঙ্গল, নিষ্কৃতির অভিমুখ খোঁজে -
আয়নায় ভালবাসলে নিজের এ মুখ -
উন্মাদ নার্সিসাস রতিক্লান্ত কাঁদে l
তীব্র প্রেমের পাশে হন্তারক ক্রুর লিপ্সা এক

উস্কানি দিয়েই চলে প্রহারের,
প্রবল ক্রোধের !


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন