.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

শনিবার, ২৩ ডিসেম্বর, ২০১৭

শীতকেই ভালোবাসি









।। সিক্তা বিশ্বাস।।

শীতের দেশের কন্যে আমি
শীতকে দারুণ চিনি ---
হাড়কাঁপানো ঠক ঠকানো
শীতকেই ভালো জানি l
গ্রীষ্ম হেসে বললে আমায় ,
গাল পেড়েছিলে ,ভুলিনি তোমায় ,
এবার কাঁপো শীতের জন্যে
 
খোঁজো আমায় হয়ে হন্যে !
হাসি আমি মনে মনে ,
শীতের আমেজ ক'জন জানে !
হিমেল শীতের বরফ বৃষ্টি
 
প্রকৃতির এক অমোঘ সৃষ্টি l
বললাম হেসে ,
সুয্যিমামা দেয়না ফাঁকি ,
কোনকালেই পড়েনা বাকি !
তোমার তালে যেমনি চলে
 
শীতের কালেও কথা বলে l
তাইতো,
আমার শীত হিমেল হাওয়ার কমলাবনে ,
বাহারি রূপে --- হলুদ পাতার সবুজ বনে
 
পড়াশুনা বিহীন
  ছুটির দিনে ,
 চাই যে তারে  মনের কোণে l
শীত যে আমার গরম পশমে ,
গল্পের বই আর চিনে বাদামে ,
লেপ-কম্বলে মোড়া উষ্ণতার আরামে
  
কিংবা গরম চায়ের পেয়ালা চুমে
  l
আমার শীত যে পিঠে-পুলির আমেজি দিনে 
নেশা লাগায় কুল,জলপাই আর আমলকীবনে
 
শুকনো পাতার মর্মরে শির্ শিরে শব্দবাণে
কিংবা বেদুইন মনের বন্-ফায়ারের বনভোজনে l
আমার শীত শৈল-শহরের সাজের দিনে 
সান্তাক্লজের
  ' বড়দিন ' এর আনন্দ দিনে 
উজ্জ্বল আলোর রাশির
  শহর তলে ,
জিঙ্গলবেল এর ক্রিস্টমাস ক্যারলে ll
  ##ঝোড়োমেঘ সংকলন ##
       শিলং l




একটি মন্তব্য পোস্ট করুন