.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

শনিবার, ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৭

নেশাখা বাহার

।। অভীক কুমার দে।।

(C)Image:ছবি














.
পাহাড়ের গা বেয়ে সরু রাস্তা পাহাড়ের চূড়ায়
যেখানে একাকী অন্নচন্দ্র পাড়া
দু'পাশের শরীরী বাঁক বনজ শাড়িতে ঢেকে
ভুলুঙ্গা ফুল গেঁথেছে খোঁপায়,
নেশাখা বাহার মায়াবী চোখ থেকে ঝর্ণা ঝিলিক বয়ে আনে প্রবাদের বনকথা।
এভাবেই জেগে থাকা কোয়াইফাং,
বাঁচিয়ে রাখে কোন পাছরা বোনা কুমারী মেয়ের গান।
.

* নেশাখা- উপরের দিকে তাকিয়ে থাকা।



একটি মন্তব্য পোস্ট করুন