.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

বুধবার, ৮ মার্চ, ২০১৭

নারী তুমি

         ।।    সুমন দাস।।।

(C)Image:ছবি























নারী তুমি জন্মদাত্রী সবারই,
তুমিই আমার শ্রদ্ধা। 
নারী তুমিই তো কাহারও ভার্যা,
কাহারও বা আত্মজা।।
নারী তুমি কখনও রণংদেহী,
কখনও মমতাময়ী।
কখনও দুর্গা কিংবা কালিকা,
রণচণ্ডী রূপে যায় দেখা।।
নারী তুমি বিভবপালিনী লক্ষ্মী,
বিদ্যাদায়িনী সারদা।
কখনও তুমি যে গো দেশমাতা,
কখনও সৃষ্টির পালিতা।।
নারী তুমিই কাহারও প্রেয়সী,
অর্ধাঙ্গিনী বা ভগিনী। 
জন্ম দিয়ে জীবনের মানেটা,
বুঝিয়েছ নারী তুমি।।
নারী তোমার ত্যাগের মহিমা,
অনেকেই বুঝেনি।
কিছু পিশাচ কথা বা ব্যবহারে,
করছে শ্লীলতাহানি।।
মানবতা তব জন্য করেছে কান্না,
তন মনে উঠেছে যন্ত্রণা। 
তবুও নারী তুমি নানা সময়েতে,
পিশাচদের করেছ ক্ষমা।।
হয়তোবা তোমায় পারিনি দিতে,
আমি প্রাপ্য সম্মান। 
নারী তোমার জন্যই তো আমার,
সংসারে উঁচু স্থান।। 
ক্ষমা করেছ অনেককে এক পুত্র,
ভাই কিংবা সাথী ভেবে।
তোমার মহিমা থাকবে যে অপার,
যতদিন সংসার থাকবে।।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন