.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

বৃহস্পতিবার, ৯ মার্চ, ২০১৭

ফ্রি নয় যে ভয়েস কল




।। শঙ্খ সেনগুপ্ত।।












রিত্যক্ত যা কিছু তার গায়েও মমতা, আদর, ভালবাসা, ফুলের গন্ধ ছিল। ছিল আরও
অনেক কিছু। আগুন সেও চিনতো। আস্তা-কুঁড়ের প্রয়োজন তারও ছিল। একদিন।

মায়া ও গতির হুড়োহুড়িতে, বেমালুম জড়িয়ে যাওয়া। সেতু আর সুতোর জালে।
বহু অলোক-বর্ষ ওপাড় হতে আসা, আলোকবিন্দু, পথ এঁকে চলে, পথেরই ভিড়ে।

উপনিবেশ চক্রবূহ্য, রক্তাক্ত ইতিহাস, চিরকাল ভুল পাঠ করে। এক জীবনে কতবার
শ্মশানে নিয়ে যাবে, দীর্ঘ হতে থাকা, আয়ুরেখা ! বৃদ্ধাঙ্গুষ্ঠ, একটি চুমু তোমারও প্রাপ্য।
একটি মন্তব্য পোস্ট করুন