.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

সোমবার, ২০ মার্চ, ২০১৭

অর্গলহীন

 ।।পার্থ  প্রতিম আচার্য  ।।


 












পোষের নগ্নতা-
রাজার কাপড় নেই বলার
কেউ নেই-
সময় -গিরগিটি ,অভিশাপ ,

এই নিয়ে বাঁচা
মাঝে মাঝে ট্রান্সজেন্ডারের
না-লিঙ্গ গলায়
বাহ বাহ শুনেও
ভেতো আমি সব বুঝেও
না বোঝার ভান করে
ফিরে যাই নরকের দ্বারে,
নিজেকে প্রবোধ দেই-
কী হবে”? ছোট্ট কচি মুখগুলি
হাসি মেরে ছুড়ে দেয়
শেখানো একরাশ বুলি,
চলে গেলে নিঃসঙ্গতা
বলে যায়- ধ্যাত্তেরিকা ,
পরাজয়-গ্লানি এক
চোঁয়া ঢেঁকুরের মতো
জ্বালিয়ে দেয় বুক থেকে মাথা ,
গিলে ফেলি বোতলের জলে ,
কম্প্রোমাইজ করতে করতে
নির্জনে হুল ফোটার আগে
হয়ে থাকি না-মানুষ ।
যন্ত্রণা সব হুঁশ ফেরাতেই ।।







একটি মন্তব্য পোস্ট করুন