.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

বুধবার, ২ মে, ২০১৮

কাঁটাতার










।। সুপ্রদীপ দত্তরায়।।


ত্যি সুনীলদা , শতাব্দী পেরিয়ে গেল 
এখনো মানুষগুলো সেই  ছেলেমানুষ ---
শত চেষ্টাতেও বড় হতে পারলো না ।
পদে পদে এত পদাঘাত , এত লাঞ্ছনা
তবু জানো, ওরা রুখে দাঁড়াতে শিখে না ।
মাথার উপর আকাশটাতে মানচিত্র এঁকেছে 
রেখায় রেখায় তার  তাজা রক্তের ছাপ
রক্তের স্বাদ নাকি লোনা হয় আমি জানি না, 
তবে ভীষণ ভয়, যদি নেশা হয়ে যায় ।
কেউ যদি জানতে চায় , কী আছে দেখার
গর্বের সাথে বলে ওরা সীমান্ত রেখা, 
আর -- ? আর সেই  সীমান্তে কাঁটাতার বেড়া ।
বন্ধু কাঁটাতার বেড়া শুধু সীমান্ততেই আছে ?
আর কোথাও পাওনি খুঁজে পাতা
যদি দেখার মত চোখ থাকত আজ , 
দেখতে কাঁটাতার মনের মধ্যে গাঁথা ।





একটি মন্তব্য পোস্ট করুন