.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

মঙ্গলবার, ৮ মে, ২০১৮

কবি প্রণাম

 ।। চিরশ্রী দেবনাথ ।।

(C)Image:ছবি

















মি ফিরে আসি প্রতিদিন তাঁর কাছে
যাবতীয় ভুল, অপমানসূত্রতা কাঁধে নিয়ে
সায়াহ্নে  রূপসাগরের জল ছুঁয়েছে ব্যর্থতা
যেন কিছু নয়, যেন কিছু নয়, যেন আকাশ আমার বিষয় নয়
রৌদ্র, শুষ্কপত্ররাজি, ক্লান্ত বাতাস কোনটাই আমার ভাষ্য নয়
কোথাও জমছে খনি, জমছে বারুদ, তৈরি হচ্ছে বিরুদ্ধ
প্রাচীর
আমি কী তবে লিখবো  বাতিল অসহায়তা 
কোথা থেকে আনবো ঈশ্বর, চোখের জল, সুরাসুর সমাগম
এই যে লিখি অন্ধকারের সমাপতন
লিখতে লিখতে বার বার মেয়ে হই 
তোমাকে দেখি কবি... কবিকে দেখি
দীর্ঘ,  দীর্ঘতর, ঋষির মতো, বিনয়ের মতো, ঔদ্ধত্যের মতো
যেন রেখেছো হাত আমার সকল তুচ্ছতায় 
তব প্রাণে মিশে যেতে যেতে ভাবি
অক্ষরে
অক্ষরে 
 ফুলশোভিত যুদ্ধক্ষেত্র, দৃপ্ত আলিঙ্গন, ঝড়ের জানালা
সব রেখে গেছো
এখানেই দুটো ভাত বেড়ে খাই, একমুঠো বৃক্ষ জ্বলে, এক সহস্র
জলে আমার ধৃষ্টতা মাথা নত করে থাকে। 





একটি মন্তব্য পোস্ট করুন