.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

মঙ্গলবার, ১৫ মে, ২০১৮

গভীর রাতের কবিতা



    
      ।।  শিবানী ভট্টাচার্য দে ।।



(C)Image:ছবি








নেক রাতে কলম খুলে কবিতা লিখি
কথার ভিড়ে জ্যাম হয়ে যায় মগজখানা,
তবু এলোমেলো কথার নেইকো মানা
ঢুলু ঢুলু চোখে আখর একাকার দেখি

নিশুত রাতে সবাই ঘুমোয়স্বপ্ন দেখে
এলিয়ে শরীর ঠিক বা বেঠিক নিজ বিছানায়
ঘুমকে আমি আজ ঠেকাব এমনি দায়
নিয়েছি যখনবসেই ঢুলা ঠেকাবে কে

কবিতা কভু সংকল্পের নয়কো দাসী
জেগে থাকলে আসবেই সে মিথ্যে আশা
মিছেমিছি হিজিবিজি বানানো ভাষা
কবিতা বলে ফেসবুকে তা চালিয়ে আসি

ফাঁকিটুকু নিজের কাছেই পড়লে ধরা
নিজেই হাসিনিজেই কাঁদি অক্ষমতায়-----
তন্দ্রা ডোবে সংশয়ের ওই ক্ষুব্ধ তলায়,
নিরবয়ব পটে ফোটে একটি তারা

তারা ফোটেতারা ফোটে মন-আকাশে
স্বল্প আলোয় ঝিকিমিকি প্রকাশখানি
বিজন ঘরে নৈঃশব্দের শব্দ আনি
ওই  তো আমার কবিতা বালা মৃদু হাসে


    
      



একটি মন্তব্য পোস্ট করুন