“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো ,স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ...তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!—সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!” ০কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ০

মঙ্গলবার, ২৪ জুলাই, ২০১৮

জন্মদিনে

মৌপির জন্মদিনে ---

জন্মদিন

জন্মদিনটা কেমন জানিস ?
কাঠফাটা রৌদ্রেতে
ঘনঘটা  বৃষ্টি ।
অথবা বন্ধু বাড়িতে গেলি ,
হঠাৎই বাড়িয়ে দিল
এক প্লেট মিষ্টি ।

মনে কর কোথাও তুই
একা একা ঘুরছিস
ধুধু পথে আলো ছায়া
আনমনা ভাবছিস
হঠাৎই ভেসে এলো
মিষ্টি এক গন্ধ ।
অবাক তুই,  এখানেও --
চাঁপা আর আকন্দ !

মনে কর, রোজকার
অফিসেতে গিয়েছিস
মনটা ভারী ভার
একা তুই অফিসেতে
ছুটিতে অফিসার ,
কাজেতে মন নেই
মনে নেই আনন্দ
হঠাৎই আসুর ডাকে
অফিসটা বন্ধ ।
সত্যি কি আনন্দ, তাই না   ---।

জন্মদিন আসলে জানিস 
পথেতে শুভেচ্ছা ফলক
অভিজ্ঞতার সোপান ;
কেকের বদলে ক্রীম কাটা
বয়সের কারচুপি
আর রোমন্থনের গান ।

আর আমাদের কাছে?
আমাদের কাছে তোর জন্মদিন মানেই
অনাবিল আনন্দ, আর অব্যক্ত তৃপ্তি
চাপা খুশি আর নতুন উৎকণ্ঠা ,
ক্ষণে ক্ষণে জোড়হাতে প্রার্থনা
আর অনাবশ্যক ব্যস্ততা ।
তুই আনন্দে থাক, সুস্থ থাক
এমনি ভাবেই হাসতে থাক
তোর আলোকে আলোকিত হোক
সবার হৃদয়ধাম । ব্যস ঐ আর কি,
আর কিছু না । ভালো থাক ।

সুপ্রদীপ দত্তরায়

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন