.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

শনিবার, ২৮ জুলাই, ২০১৮

আমার ছেলেবেলা



   ।।   এম রিয়াজুল আজহার লস্কর ।।

(C)Image:ছবি









ভোরটা হলেই পাখির গানা আসত পাখি গাছে।
গবাদি সব জমত পশু ধলেশ্বরীর কাছে।।
সকাল হলেই পড়া লেখা বিকেল হলেই খেলা।
স্বপ্নের মতই ভাসছে এখন আমার ছেলেবেলা।।

ভোরটা হলেই হুক্কা খেয়ে নামত মাঠে চাষি।
বনের ধারে দুলত হাওয়ায় পুষ্প রাশি রাশি।।
রোজ বিকেলে বনের ধারে জমত শিশু মেলা।
স্বপ্নের মতই ভাসছে এখন আমার ছেলেবেলা।।

রাত্তি হলেই হুক্কা হুয়া ডাকত শেয়াল মাঠে।
বনের বাঘে করত খেলা কাটা গাঙ্গের ঘাটে।।
রাত্তি হলেই অশ্রু ঝরা আসত পড়ার ঠেলা।
স্বপ্নের মতই ভাসছে এখন আমার ছেলেবেলা।।

ঝগড়া ফ্যাসাদ মারামারি অল্প ছিলো গাঁয়।
স্কুল পালালে বিপদ হত করত শাসন মায়।।
সোনার গাঁয়ে মিষ্টি হাওয়া সবুজ রঙ্গের মেলা।
স্বপ্নের মতই ভাসছে এখন আমার ছেলেবেলা।।
                           ------
(শব্দ তরঙ্গ, পৃষ্ঠা নং ৩৫)
© সংরক্ষিত





একটি মন্তব্য পোস্ট করুন