“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো ,স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ...তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!—সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!” ০কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ০

বৃহস্পতিবার, ৫ জুলাই, ২০১৮

কালকথা- ৪৩

।। অভীক কুমার দে ।।

(C)Image:ছবি









স্বাধীনতা, তুমি শিশু ছিলে যখন
ভাগাভাগিতে তছনছ মানুষ
মানবতা ভুলে দেশ, বিদেশ।
তুমিও দেশ বিদেশে
 
শিশু থেকে বড় হতে হতে এতোই বড় হলে যে
মানুষের ভেতর জায়গা হয় না এখন !
স্বাধীনতা, তুমি এখন জোয়ান নাকি বৃদ্ধ ?
বলো, হোলি খেলে যারা রক্তের হোলি
ওরা কারা ?
ওদের ভেতর তুমি নাকি তোমার ভেতর ওরা ?
রোজ দেখি--
রক্ত দিয়ে লাশের ঘরে
রক্তরাঙা ভোর,
দোর
খুলে অবাক মানুষ
রক্তঝরা সোর।


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন