.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

রবিবার, ২ জুলাই, ২০১৭

অব্যক্ত কথা

                        
                  
         ।।       রফিক উদ্দিন লস্কর      ।।
(C)অসমিয়া প্রতিদিন
 







ক্ষ ফাটে তবু কথা নাহি ফুটে, বিশাল পাহাড় ;
নামে ঝর্ণাধারা, একাকার হয় গায়ের সব হাড়।
বোবাকান্নায় হৃদয় ক্ষরণ, তবুও একরাশ আশা,
শোণিতধারা বহমান নদী, চাপা পড়া যত ভাষা।
আগ্নেয়গিরি, ধোঁয়াটে রঙ, বিবর্ণ সব ফ্যাকাসে,
বিকটগন্ধ চৌদিক মুখরিত করে হাওয়ায় ভাসে।
যত শেয়াল কুকুর দলবেঁধে এসে চামড়ায় টানে,
হয়নি ব্যথা নিথর দেহ, তবুও প্রাণে নাহি মানে।
কোথায় শ্মশান কবর! চাপাপড়া পাহাড়ের নীচে,
পাথরের পৃথিবী, জন্মমৃত্যু চক্র শুধু না'কি মিছে।
কঠিন পাহাড়, তার বক্ষ চিরে দেয় ঝর্ণার জনম,
তরু শাঁখে ফুল মেলে পাপড়ি, ধরে রাখে শবনম।
মগডালে বসে করে চীৎকার, করিতে উদরপূর্তি,
রুষ্ট মাটি, বিবর্ণ চোখ, সামনে দেখে ভীষণ মূর্তি।
---------------------------
 ০২/০৭/২০১৭ইং
নিতাইনগর,হাইলাকান্দি(আসাম-ভারত)



একটি মন্তব্য পোস্ট করুন