.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

শনিবার, ২০ ফেব্রুয়ারী, ২০১৬

আমার রাতকণা


।। চিরশ্রী দেবনাথ ।। 

(অনু কবিতা)

(C)Image:ছবি






















"শীত যাবার সময় যে কমলা চুমুটি রেখে যায়, সেটা  ইচ্ছুক ঈশ্বরের জৈবতা”

দুই
"আগ্নেয় আশায় জড়িয়ে ধরি বরফ , তোমার  আগুনই আমার রঙ "

তিন
"রাতশেষের ঘুম, বিরহগ্রীবায় রেখে যায় জলমহল "
 
চার
"তুমি সব কিছুতেই আসন্ন সঙ্গম, আমি এক ডুবন্ত উড়ান "

পাঁচ
"তোমার উপেক্ষা আমার কাব্য আমরন, অমরন "

ছয়
"অগোছালো ভালোবাসা চুমুকে চমুকে জাফরান "

 সাত
তোমার সব অবসাদ, আমার পরমান্ন,
তবুও নক্ষত্রচোখে কুয়াশার বাষ্প ছাদ ...
আশ্লেষে  দীর্ঘশ্বাস রেখে গেলে, তবে সবই কি ভুল পরিক্রমা  ছিল .....

আট
"পদ্মবনের শেষ সাপটি, শুকনো ফুলের মধুতে আটকে গেছে, সরীসৃপতায় তার আর বিশ্বাস নেই...."

নয়
এ শরীর মাটি, মাটি, মাটি ..
তবু তোমার শিকড় আমাকে পেরিয়ে যায় ...
একটি মন্তব্য পোস্ট করুন