.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

সোমবার, ২২ আগস্ট, ২০১৬

দুটি হাত ...চিরশ্রী দেবনাথ

দুটি হাত

................©চিরশ্রী 

দুটি হাত শক্ত করে ধরে আছে বাসের হ্যান্ডেল

একটি হাত ,রোমহীন, সুডোল, স্বচ্ছ নখে রোদের চাষ 

যেন জ্যোৎস্নায় ঢাকা নদী নেমেছে বরফের স্বর্গ ছুঁয়ে

অন্য হাতে রোমের কালো বন, বাঁকাচোরা ময়লা নখ

যেন ময়াল সাপ উঠে এসেছে খনির অন্ধকার মেখে 

এই দুটো হাত যে যার মতো করে কাল রাতে ভালোবেসেছিল

কাল ছিল অমাবশ্যা ...সুগভীর 

কালো রোমশ হাত থেকে  লাফিয়ে পড়েছিল বাঘ

ময়লা নখ থেকে সুনামীর জলোচ্ছাস  

ফর্সা সুডোল হাত চেপে দিয়েছিল অন্ধকার

প্লুতনোভা আলোয় ভেসেছে তখন  রঙীন মাছ

দুখানি হাতের তলায় রোশন চৌকি, পরিশ্রমের নহবত

প্রতিরাতে তারা ভালোবাসতে যায়,

তারপর উটের মতো পথচলা রেখে আসে দোরগোড়ায়, 

আম্রপলবের কষ ঝরে,  টুপটাপ, সুস্বাদু মঙ্গলছাপ...







একটি মন্তব্য পোস্ট করুন