.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

শনিবার, ১৩ আগস্ট, ২০১৬

দীপা ...দ্য অলিম্পিয়ান


  






।। চিরশ্রী দেবনাথ ।। 


দীপা... একটি গভীর আশার নাম
নাগেশ্বর ফুলের গন্ধে ডুবিয়ে রাখা শস্যনীড় 
 প্রদুনোভা ভল্টে হয়ত ঝলসাবে স্বর্ণশোভা হয়তো বা না
থাকবে একটি অক্লান্ত পেরিয়ে যাওয়া 
থাকবে স্রোতের মুখে জ্বালিয়ে রাখা সবুজাভ আগুন
সেখানে পা রাখবে কচি গাছের দল
একটি পদক, স্বার্থপরের মতো চাওয়া,
ঘাম জেদে মাখামাখি,  এখানে নেই ধাতবস্পর্শ,
জেগে জেগে ওঠে  শেষপর্যন্ত শুধু একটি মেয়েরই ঘুমহীন রাত
পদকের পথে গড়িয়ে পড়েছে  কত অপমানের অভিধান
বিলিয়ন ভারতের চোখে মরুজ্যোৎস্না 
উত্তরপূর্ব ভারতের এই একফোঁটা বৃষ্টি ঝরবে কি?
দীপা ...
যদি না ওড়ে ত্রিবর্ণ রঙিন
 যদি না বাজে সিন্ধুসঙ্গীত...রিও র আকাশে 
আমরা শুধু জানবো  
তুমি সেদিন  ঝরেছিলে সবটুকু দিয়ে...


 



একটি মন্তব্য পোস্ট করুন