.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

রবিবার, ২৯ নভেম্বর, ২০১৫

শব্দ

॥ নীলদীপ চক্রবর্তী ॥ 



















ব্দ নভোতে শব্দ বাতাসে ভাসে
শব্দহীনতাও তীব্র শব্দে বাজে
দুর্বোধ্য শব্দেরা বিদ্রোহ জানায় কবিতায়
ক্ষত বিক্ষত কবিতা শব্দের ওড়নাতে সাজে ।
শব্দ লুকোয় প্রেমে অভিমানে ক্রোধে
শব্দেরা হতাশাতে ডুবে যায়
থিকথিকে শব্দেরা কামনায় ভেসে ওঠে
পাশবিকতায় শব্দ নিজেকে হারায় ।
শব্দ বেঁচে থাকে ভূমিহারাদের মাঝে
নিঃশব্দতার গানেও পৃথিবী শব্দময়
অস্তিত্ব খোঁজে শব্দেরা এই শহুরে বেড়াজালে
তবু প্রতিনিয়ত কিছু শব্দের মৃত্যু হয় ।
একটি মন্তব্য পোস্ট করুন