.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

বৃহস্পতিবার, ১২ নভেম্বর, ২০১৫

পুনর্জন্ম

।। দেবলীনা সেনগুপ্ত।।














ব শব্দ শেষ হয়ে যাওয়ার পর
ছড়িয়ে থাকে যে মুখর নৈঃশব্দ্য
তাকে ছুঁয়েই জেগে উঠি প্রতিবার
নবনির্মাণে।
এখনো আকাশ নীল রঙ মাখে প্রতিদিন
স্থির ভরসায়
পাহাড়েরা মুখ দেখে নেয় নদীজলে ।
শস্যের আলাপনে
নিভৃতের গণগানে                                                      
যাবতীয় মৃতদাগ শবঘ্রাণ মুছে ফেলে
 নিশ্চিত প্রতিজ্ঞায় ।
ইতিহাসের শেষের পাতায়,
মৃত্যুরা বারবার হার মানে
জীবনের আশ্লেষগাথায়...




একটি মন্তব্য পোস্ট করুন