“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো ,স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ...তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!—সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!” ০কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ০

শনিবার, ১৬ জুন, ২০১৮

লজ্জা

।। সুপ্রদীপ দত্তরায়।।

(C)Image:ছবি








মন একটা দিনের জন্য 
আমায় লজ্জা দিলেন ভাই ।
আমার মন প্রাণ সব অবশ করা
 
এমন একটা দিন যাচ্ছেতাই ---
যেন মনকে আমার ধমকে দিলে
গর্ব করার জায়গাটাকে
 
শূন্যে তুলে আছাড় মেরে
আঙুল তুলে দেখিয়ে দিলে
 
আমার মিথ্যে গরবটাই ।
আমি ঘাবড়ে গেলাম তাই ।
এমন একটা দিনের জন্য
 
বড্ড লজ্জা পেলাম ভাই ।
আমার আকাশটা আজ হঠাৎ যেন 
চূর্ণ হলো, দীর্ণ হলো
 
গুমড়ে গুমড়ে
  কান্না আমার 
ডুকরে ওঠা রুদ্ধ শ্বাসে
ডান বুকের ঐ জ্বলন্ত ঘায়
আগুন ছড়ায়, বিষাক্ততায়
ভাবতে কষ্ট হয় ।
আমি বুক চাপড়ে বলতে চাই
 
এই কি আমার শিক্ষাটাই ?
পৈশাচিক এক বর্বরতায়
 
কেমন করে নিলেম আমরা
 
ভাইয়ের জীবনটাই ?
আমি চমকে গেলাম তাই।
এমন একটা দিনের জন্য
 
বড্ড লজ্জা পেলাম ভাই ।
কি ছিল তার মনে 
খানিকটা সে ভবঘুরে
 
প্রকৃতিকে ভালবেসে
 
নীল পাহাড় আর সবুজ বনে
ঘুরছিল সে অলস ব্যস্ততায়।
কি অপরাধে আনলে বেঁধে
 
প্রকাশ্যে ঐ রাজপথে
পৈশাচিক এক উল্লাসেতে
নির্মম সব লাঠির ঘাতে
 
দল বেঁধে সব বর্বরেরা
কাড়লে জীবনটাই।
জাহির করতে বীরত্ব সব
বন্দি করে মোবাইল ঘরে
ছড়িয়ে দিলে গোটা বিশ্বটাই ?
কাঁপলো না যে হাতটা কারো
কাঁদলো নাতো মনটা বড়
 
মনুষ্যত্বের টুঁটি চেপে
 
দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে দেখলে দৃশ্যটাই!
ওরা যে দুজন অসহায়, কাঁদছিল,
যন্ত্রণা আর চিৎকারেতে বলছিল
 
দোহাই তোমাদের,
  আর মেরো না --
আর মারলে মরে যাবো
অনেক হলো, এবার ছাড়ো, বাড়ি যাবো
ভুল করেছি, ভুল করেছি ঘুরতে এসে
 
প্রকৃতিকে ভালবেসে
 
অজান্তেতেই ঢুকে গেছি তোদের এলাকায় ।
 
থাকিতো ঐ পাশের জেলায়
তোদের গায়ের ছেলে মেয়েরা
 
অনেক থাকে আমার পাড়ায়
 
ওদের সাথেই সকাল সন্ধ্যা কাটাই।
ওদের বলা গল্প শুনে
 
এসেছি হায় এই শহরে ,
 
এমন ভুল আর করবো নাকো জেনো।
দোহাই তোদের পায়ে পড়ি
 
এইবারটি ক্ষমা করি
আর মেরো না, ছেড়ে দাও, এবার বাড়ি যাই।
আর মেরো না দাদা ওগো , তোমার
তো ভাই আছে
দিদিরা সব দেখছো
কী , প্লিজ তোমরা বাঁচাও এসে
দোহাই তোমাদের
  আর মেরো না --
আর মারলে মরে যাবো
অনেক হলো, এবার ছাড়ো, বাড়ি যাবো
ভুল করেছি, অজান্তেই ঢুকে গেছি
এমন ভুল আর করবো নাকো জেনো।
শুনলে না সেই মড়া কান্না, নিষ্ঠুর সব --
হত্যা করে ছেলে দুটো আনন্দ রব --
ভাবছো বুঝি করলে বিজয় দেশ ।
পৈশাচিক এক উল্লাসেতে, লাঠির ঘাতে
মনের মধ্যে লুকিয়ে থাকা হিংস্রতাকে
আরো একবার
  জাগিয়ে দিয়ে 
সাময়িকী উপস্থিতির বাহাবা কুড়ালে বেশ ।
মরলো নাতো ছেলে দুটো, মারলে যারা
 
মারলে নিজের মনুষ্যত্ব , দৃষ্টি হারা
 
বুঝিয়ে দিলে সভ্যতো নও মুখোশপরা,
 
অন্তরেতে লুকিয়ে রাখা, যত্ন করে আবাদ করা
শয়তানেরই দেশ।
ধিক্কার -, ধিক্কার এই মানসিকতার
ধিক্কার এই গবেট শিক্ষার
ধিক্কার এই ক্লীব সমাবেশ ।


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন