.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

রবিবার, ২৪ জুন, ২০১৮

ঘুণেধরা স্পৃহা


      ।।       রফিক উদ্দিন লস্কর      ।। 


(C)Image:ছবি














কাশের গায়ে লিখে দিলাম সিঁদুর দিয়ে
অশ্রুকণায় যেনো মুছে না যায়,
কিছু প্রলাপ একদিন বাস্তব রূপ নিয়ে, আর
দুহাত বাড়িয়ে পথ আগলে রবে।
বৈশাখী বাতাসে উড়ে নিয়ে যাবে, কিছু স্মৃতি
পাতায় পাতায় সাজানো বিন্যাসে।
ধুলো পড়া ইতিহাস ছাপবে  নতুন সংস্করণে
অন্ধত্বের অবসানে প্রকাশ পাবে,
সিন্ধু হিল্লোলে ভিজে যাবে তপ্ত অধরের কোণ।
হয়তো আসতে পারে এক নতুন দৃশ্যে, 

দস্যুবৃত্তিতে জীবনের ইতিরেখা।
তবুও মননে গড়বে তার নতুন কারুকাজ
কিছু স্বপ্ন,স্মৃতি আর কটুকথায়,
টিপটিপ পায়ে এগিয়ে যাবে জীবন সমরাঙ্গনে।
সহসা সাহসে দর্শকের করতালিতে
তোলপাড় করে দেবে জীবনের অসমাপ্ত ডায়েরি। 

সমস্ত বাঁধার শিকল ডিঙিয়ে সেদিন 

আনমনে সাঁতার কাটবে আশার স্বচ্ছজলে।
মৃদু হাসি লেগে থাকবে ঠোটের কোণে
জেগে উঠবে ঘুণেধরা স্পৃহা। 

...
নিতাইনগর,হাইলাকান্দি(আসাম-ভারত)




একটি মন্তব্য পোস্ট করুন