.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

মঙ্গলবার, ৫ জুন, ২০১৮

ভুটানে একদিন

।। অভীক কুমার দে ।।

(C)Image:ছবি










তোর্সাকে খুঁজে পাই ফুয়েনসেলিংয়ে
বউবাজারের গা ঘেঁষে শুয়ে আছে তোর্সা।
বহু ব্যস্ততার মাঝেও জয়গাঁ চুপচাপ
চেয়ে আছে পাহাড়ি মুখ,
এখানেই ভাগ হয় বুক
যন্ত্রণার স্তূপ যত্নে রাখা;
কষ্টের কলকলানি শোনে উড়োমন।
শরীর বেয়ে উপরে উঠছি
আরও উপরে
সব আঁকাবাঁকা রাস্তা
পথ খোঁজে কুয়াশায়।
অসহিষ্ণুতায় তেতে ওঠা শরীর আমার
ছুঁয়ে দেখছে রাজা- পাহাড়,
শীতল হতে থাকি আর নীরবেই শুনি
তোর্সার মুখে ঘুমপাড়ানি গান।
সরল মন ছুঁয়ে ভুটানি বাতাস এলে
ভেজা আঁচল মেলে নেচে ওঠে মেঘমেয়ে,
ঝরে পড়া তরল ছন্দে জয়গাঁ'র শিশুঘুম।



একটি মন্তব্য পোস্ট করুন