.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

মঙ্গলবার, ২৬ জুন, ২০১৮

মাথাব্যথা

।।         রফিক উদ্দিন লস্কর       ।।
আরও তিন চারটের মতো সে ও একজন
ঘুরঘুর করে বেড়ায় প্রতিরোজ,
স্কুল কলেজে, বা কোন দামি প্রতিষ্ঠানে
বড়ই আদরের আকাশের তারা।
বাইরের আলো বায়ূতে একদম পরিপক্ক,
পুরো খালি, পরের পকেটের অর্থ।
রাত দিনের তফাৎ খুঁজতে খুঁজতে এখন
দিন যায়, সে অবাক করে দেয়।
ভাবতে ভাবতে মানুষের মনের পরিবর্তন
কে জানে! ফিরবে কি স্বস্থানে।
আগুনের আলিঙ্গনে সে এখন পুরো মত্ত,
সফেদ মিহি দানার খোঁজে এখন...
শহরের অন্ধ গলিতে বা বদ্ধ কুঠরিতে
সারাটা দিন কাটে সিদ্ধি সাধনায়।
নতুন না হলে ও পুরানো নিডিলে তার
সেরে নিতে পারে বিরাট কাজ,
ক্ষতবিক্ষত হাতে নেই বেদনার লেশমাত্র।
পুরো অভ্যস্ত, মাথা ধরে অনুপস্থিতিতে
কারণ...একটুও ঘুম হয়না রাতে
ঘোর অন্ধকারে বেরিয়ে পড়ে সন্ধানে।

২৬/০৬/২০১৮ইং
নিতাইনগর, হাইলাকান্দি(আসাম)









একটি মন্তব্য পোস্ট করুন