.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

মঙ্গলবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী, ২০১৭

আমি ঊনিশ বলছি......

।। সুমন দাস ।।

 
(C)image:ছবি

 













মি ঊনিশ বলছি গো ঊনিশ,
হ্যাঁ গো হ্যাঁ ঊনিশে মে আমি।
আমার চোখের সামনেই তো,
রক্তাক্ত হয়েছিল বরাক ভূমি।।


দেখেছি আমি একষট্টি সালের,
ঈশাণ বাংলার ভাষা সংগ্রাম।
মাতৃভাষা রক্ষার তরে হলো,
বলিদান এগারোটি তাজা প্রাণ।।

আমিই তো হলাম রাজসাক্ষী,
সেদিনের শিলচর রেলস্টেশনের।
নির্বিচারে চলল পুলিশের গুলি,
নিভে গেল দীপ একাদশ জীবনের।।

দেখেছি আমি কমলার আত্মদান,
কনাইলাল শচীন্দ্র ও চণ্ডীর বলিদান।
সুনীল সুকোমল বীরেন্দ্রের বীরগতি,
কুমুদ হীতেশ সত্যেন্দ্র তরণীর আহুতি।।

আমাকে নিয়ে তো ঈশাণ বাংলায়,
প্রতিটি বছরেই হয় অনেক উন্মাদনা।
দিনটি পেরিয়ে গেলে আর তো আমায়,
তেমন ভাবে কেউ আর মনেতে রাখেনা।।

২১ ফেব্রুয়ারীকে জানে পুরো বিশ্বজন,
ভাষার জন্য ঢাকায় ওঁরা করে মৃত্যুবরণ।
আমি দেখেছি বরাকের ভাষা সংগ্রাম,
পেলাম না আজও আমি উপযুক্ত সম্মান।।

মাহেত্রা কমিশনের রিপোর্ট প্রকাশ হয়নি,
কার দোষে চলল গুলি জানা যায়নি।
২১ শের মতো কি পাব আমি সম্মান,
নাকি বছর কয়েক পর হয়ে যাব ম্লান।।



একটি মন্তব্য পোস্ট করুন