.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

রবিবার, ১ মে, ২০১৬

চন্দ্রাহত




প্রবল ঝড় জলের পর
চাঁদ উঠেছিল তার
অনিচ্ছুক আলো ছড়িয়ে-
ছেঁড়া স্বপ্নের মত  
বিচ্ছিন্ন মেঘখন্ড
নিজস্ব আকাশজুড়ে
লিখেছিল আমন্রণলিপি
নিতান্ত দুরাশায়৷
কোথাও তো জ্বলেনি আগুন
পতঙ্গ প্রতীক্ষায়,
তবু অনিবার আসা - যাওয়া
তবুও পৌন:পুনিকতা
অনাদিকালের বৃক্ষমূল হয়ে
ছুঁয়েছিল লক্ষ্য তার-
অবাক চাঁদের ধারায়
ঢেলেছিল সবুজ আলো কতবার,
শিকড় ও মাটির ফাঁকে
গাঢ়তর জমে থাকে
চন্দ্রাহত বেদনা অপার----


 ( দৈনিক "প্রতিবাদী কলম' , ত্রিপুরা , ১ মে।২০১৬)



একটি মন্তব্য পোস্ট করুন