.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

রবিবার, ১৫ মে, ২০১৬

চূর্ণ গ্রীষ্ম...পাঁচ






 












 ।। চিরশ্রী দেবনাথ ।।

শেপাশে কোন বিমূর্ত প্রেমিক
একটি পক্ষীরাজ ঘোড়া পা ঠুকে ঠুকে কেন যে ক্লান্ত
গ্রহ তো এখনো সবুজ, ধুলোর প্রাসাদে নতুন ধান
রাতকে ঘিরে হাঁটু ভেঙে বসে শরীরী  গ্রন্থ
উড়ে উড়ে জমে উঠে ঝকঝকে ছুঁড়ি বরফ
এসবই প্রলাপ, আত্মরতি, বিড়াল লোভ
কয়েকদিনের  এই লেখা আসলে কল্পিত সত্ত্বা
ছিঁড়ে, খুঁজে, খুঁটে দলিলের মুহুরি হিসেব
এভাবেই মিথ্যে যাপন.... নত হয়ে থাকা এক মানবী মুখ




একটি মন্তব্য পোস্ট করুন