.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

রবিবার, ৩ এপ্রিল, ২০১৬

বসন্ত ধুলো .....তেইশ

।। চিরশ্রী দেবনাথ  ।।
( অচেনা কমরেড )
 
(C)Image:ছবি

















.........................
শ্রেণীসংগ্রাম, শ্রেণীহীন সমাজ
সবই যেন ধোঁয়া ধোঁয়া ভাসন্ত রোদ
ধানের শীষের মতো ভরন্ত এই তরুণ
দুরন্ত সিগারেটের রোমান্স ...ফু:
ডুবন্ত রোদ জমতে থাকে
বোকাদের মিছিলে
তরুণের হাতের তালুতে সোনালি ঘাম
কফির কাপে জমতে থাকা
বিশ্বাসী হাইড্রোডায়নামিক্স
ঘাসের মতো বিনয়ী
একটুকরো ভঙ্গুর প্রেম, নাহ্
ওসব অবয়বে সে কোনদিনই
জারিত হতে চায় না,
বছরশেষে কলেজের গেটে
উড়তে থাকে কিছু পতাকা,
সমুদ্র ঘেঁষে যেন একতারা শ্লোগান
ধেয়ে ধেয়ে আসে লোহিত কণা
তরুণের সবুজ ধমনী ফিরিয়ে দেয়
এইসব অবিশ্বাসী কাচ তরল
বহুদিন ধরে রক্তকে
নীল করার  গবেষণা
তাকে আন্তর্জাতিক করেছে
তবুও অসাবধানে বেড়ে ওঠা
কিছু আগাছা  মুহূর্ত তাকে
নরম নরম গভীর সুখ দেয়
কোন এক বসন্ত হয়তো তাকে ডাকবে !
এই ডাক অজানা হোক
নীরব হয়ে চিরে দিক তাকে
ডলারের সঙ্গে রচিত হোক স্বাদু ধোঁয়া,
ধ্বস নামার আগে পাহাড় চুড়োয় হাত রাখতে ভালোই লাগে .....
গুঁড়ো গুঁড়ো পাথরে তরুণের ভয় নেই
ফুৎকারে  উড়িয়ে দেবে তরল কাঞ্চনজঙ্ঘা .....




একটি মন্তব্য পোস্ট করুন