.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

বৃহস্পতিবার, ১৪ এপ্রিল, ২০১৬

বর্ষ আসে দুষণ মেখে...



.............. নীলদীপ চক্রবর্তী
ইভাবে বহুদিন আগেই চলা শুরু হয়েছিল
বহুদিন আগেই পাতায় ভরেছিল গাছ
ভূমিষ্ট নবজাতকেরা শিখেছিল দুপায়ে দাঁড়ানো

বায়ু জল মাটি পরিশীলিত হয়েছিল ক্রমে
প্রাণ স্পন্দন সব সজীব হচ্ছিল অতি ধীরে
মুক্ত বিহংগেরা সব মেলে দিয়েছিলো ডানা

অথচ এরি ফাঁকে কবে –

কাল ধোয়া খানিকটা মিশল বাতাসে
জমি মাটিতে ছড়িয়ে পড়ল বিষাক্ত রাসায়নিক
শব্দের সাথে মিশে গেল অতিশব্দ ভীষণ

জলধারা সব শুষ্ক হয়ে ক্ষীণতর হতে লাগলো
সবুজের আলিঙ্গন পাশ কেটে
পৃথিবী ধুসর হতে থাকলো ক্রমাগত

পৃথিবী ক্রমাগত ধুসর হতে থাকলো  !!   





একটি মন্তব্য পোস্ট করুন