.“...ঝড়ের মুকুট পরে ত্রিশূণ্যে দাঁড়িয়ে আছে, দেখো স্বাধীন দেশের এক পরাধীন কবি,---তার পায়ের তলায় নেই মাটি হাতে কিছু প্রত্ন শষ্য, নাভিমূলে মহাবোধী অরণ্যের বীজ... তাকে একটু মাটি দাও, হে স্বদেশ, হে মানুষ, হে ন্যাস্ত –শাসন!— সামান্য মাটির ছোঁয়া পেলে তারও হাতে ধরা দিত অনন্ত সময়; হেমশষ্যের প্রাচীর ছুঁয়ে জ্বলে উঠত নভোনীল ফুলের মশাল!”~~ কবি ঊর্ধ্বেন্দু দাশ ~০~

সোমবার, ১৩ জুন, ২০১৬

তুমি হাত বাড়ালেই


।।শৈলেন দাস।।

তুমি হাত বাড়ালেই আমি
মেঘের সাথে উড়ে যেতাম আকাশে
সেখান থেকে বৃষ্টি হয়ে ঝরে পড়তাম
সবুজ সতেজ পৃথিবীর বুকে
আমার ক্লান্তি শ্রান্তি সব দূর হয়ে যেত
আমি শান্ত হতাম নিমেষে।

যত দু:খ গ্লানি ব্যথা মুছে যেত
অভিমানও আমার ঘুচে যেত
পূরণ হত যত অভিলাষ আমার।

তুমি হাত বাড়ালেই
আমার স্বপ্ন গুলো হত রঙিন
আর এই মন হয়ে উঠত প্রজাপতি
তোমাকে ঘিরে এলোমেলো ভাবনাগুলি
ডানা মেলত বহুদূর চুপিচুপি
আমি ভাবনার দেশে হারিয়ে যেতাম নিমেষে
তুমি হাত বাড়ালেই....

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন